Phc article 3

Program for Human Care (PHP) রূপরেখা
প্রায়ই আমরা বিপন্ন মানুষের সম্মুখিন হই। একক ভাবে তাদের সমস্যা সমাধান করা সম্ভব নয়। তাইতো কিছু আত্মত্যাগী যুব শক্তিকে একত্র করে গঠন করতে যাচ্ছি পোগ্রাম ফর হিউম্যান কেয়ার।
নিছে পোগ্রাম ফর হিউম্যান কেয়ার এর (প্রস্তাবিত) রূপরেখা তুলে ধরা হলো।
১। কেন্দ্রীয় প্রর্যায়েঃ
) কেন্দ্রীয় প্রর্যায়ে কোন কমিটি হবেনা। কোন সমস্যা হলে প্রত্যেক প্রতিনিধির মিলিত সিদ্ধান্তই গ্রহণীয় হবে। প্রত্যেক প্রতিনিধি হবে সমমানের।
) যেহেতু কেন্দ্রীয় কমিটি থাকবেনা সেহেতু অফিস বা স্টাফ থাকবেনা। কেননা এতে অনেকটা বাড়তি খরচ হয়ে যাবে কিংবা আত্মসাতের সম্ভাবনা থাকে।
) তবে বিশেষ প্রয়োজনে সাময়িক প্রয়োজনে প্রত্যেক প্রতিনিধির মতামতের আলোকে একজনকে উপদ্রেষ্টা করে প্রয়োজনীয় সংখ্যক প্রতিনিধি নিয়ে উপদ্রেষ্টা পরিষদ গঠিত হবে যারা নির্দিষ্ট কাজ শেষে এমনিতেই বিলুপ্ত হয়ে যাবে।
২। প্রতিনিধি হবে: 
) স্কুল প্রর্যায়ে
) কলেজ প্রর্যায়ে
) বিশ্ববিদ্যালয় প্রর্যায়ে
) স্থানীয় প্রর্যায়ে
স্কুল প্রর্যায়ের জন্য একজন শিক্ষক অবশ্যই প্রতিনিধি প্যানেলে রাখতে চেষ্টা করতে হবে। এবং প্রতিনিধিগন আত্মত্যাগের মানুষিকতা নিয়ে কাজ করতে হবে। এখান থেকে প্রতিনিধিদের পাওয়ার কোন সুযোগ থাকবেনা বরঞ্চ প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রে নিজ থেকে দিতে হবে। এখানে শুধু সেই সময়টুকু দিতে হবে যা আপনার কাজ শেষে অবশিষ্ট থাকে। প্রতিনিধি এমন হবে যাদের বিরুদ্ধে কোন দুর্নীতির রেকর্ড নাই। সকলের মতামতের উপর ভিত্তি করেই প্রতিনিধি নির্বাচিত হবেন।
৩। কর্মকান্ড গুলোঃ 
) পরনির্ভরশীলতা এবং তাদের পুণরবাসনঃ পরনির্ভরশীলতা কমানোর জন্য কাজ করা। প্রয়োজনে ক্ষুদে শিল্প প্রতিষ্ঠায় সহযোগীতা করা।
) করজে হাসানা প্রদাণঃ যার দ্বারা ক্ষুদে শিল্প প্রতিষ্ঠা করে পরে লাভ থেকে টাকাটা ফেরত দিতে পারলে ফেরত দেবে।
) ঋণ প্রদানঃ বিনা সুদে গরীব অসহায়দের ক্ষুদ্র ঋণ প্রদান করা। যার দ্বারা সে ক্ষুদে শিল্প গড়ে তার আয় দিয়ে আমাদের টাকা গুলো ফেরত দেবে।
) পথশিশু/টোকাই/সুবিধা বঞ্চিতদের শিক্ষা অন্নের ব্যবস্থাঃ স্বেচ্ছা শিক্ষক দিয়ে তাদের শিক্ষার ব্যবস্থা করা এবং প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রে তাদের বিনামূল্যে চিকিৎসার ব্যবস্থা করা।
) হয়রানীমুলক কর্মকান্ড বন্ধ করাঃ সমাজের সকল প্রকার হয়রানীমূলক কর্মকান্ড বন্ধ করতে কাজ করা। প্রয়োজনে আইনি সহায়তা প্রদান করা।
) বাল্য বিবাহ বন্ধ করাঃ অনেক সন্তান অনিচ্ছা থাকা সত্বেও মাবাবার মুখের দিকে তাকিয়ে মুখ বুজে সহ্য করে নেয় যদিও দেশে আইন করে এগুলো বন্ধ করা হয়েছে। আমরা তাদের মা-বাবা কে বুঝাতে পারি। বাল্যে বিবাহের ক্ষতিকর দিক গুলো তুলে ধরতে পারি কেননা, এই বাল্য বিবাহের কারণে অপ্রাপ্ত বয়সে মাতৃত্বলাভ করতে গিয়ে অনেকেই মৃত্যুমুখে পতিত হয়। প্রয়োজনে কোন মানবাধীকার বা আইনকে ইনফর্ম করতে পারি।
) বৃদ্ধ অসহায়দের বিভিন্ন কাজে সহযোগীতা করা।
) শ্রমিক মজুরীর প্রাপ্য আদায়ে সহযোগীতা করা।
) পত্র-পত্রিকায় বিবৃতিঃ বিভিন্ন সময় সাময়িক বিষয়ের আলোকে পত্র/পত্রিকায় বিবৃতি প্রদান করা।
) রক্তদানঃ কখনও কখনও এমন হয় যে একজন মুমূর্ষ রোগীর জন্য রক্তের প্রয়োজন কিন্তু রক্ত পাওয়া যাচ্ছেনা। সেক্ষেত্রে যদি আপনার রক্তের সাথে মিলে যায় তবে রক্ত দিয়ে তাকে বাঁচিয়ে তুলতে চেষ্টা করা। রক্ত সংগ্রহ করে দিতে চেষ্টা করা।
) গরীব মেধাবী ছাত্র/ছাত্রীদের পড়ালেখা চালিয়ে নেওয়াতে সহযোগীতা করা।
৪। ফান্ড- আয়/ব্যয়ঃ 
) ফান্ড গঠন করা হবে এলাকা/স্কুল/বিশ্ববিদ্যালয়/কলেজ প্রর্যায়ে।
) ফান্ডের অর্থ আসবে সাধারনতঃ প্রতিনিধিদের দানে, উপদ্রেষ্টা, শুভাকাংখী দাতা শ্রেণীর দানে।
) অর্থ সাধারনতঃ কর্মকান্ডগুলো বাস্তবায়নে ব্যয় হবে।
) চার জনের নামে একটি ব্যাংক একাউন্ট খুলতে হবে এবং টাকা তুলতে চারজনেরই স্বাক্ষর লাগবে।
) স্থানীয় প্রভাবশালী দ্বারা অডিট করা হবে।
Written by - জহির রহমান

মন্তব্যসমূহ