দেশে আশ্রয়হীন মায়ের সংখ্যা দ্রুত বাড়ছে

ঢাকাসহ সারাদেশে আশ্রয়হীন মায়ের সংখ্যা উদ্বেগজনক হারে দ্রুত বাড়ছে। বিশেষ করে সহায়-সম্বলহীন বৃদ্ধ মাদের ঠিকানাহারা হওয়ার সংখ্যা অতীতের সব রেকর্ড ছাড়িয়ে গেছে। এদের একটি ক্ষুদ্র অংশে বিভিন্ন বৃদ্ধাশ্রম ও বয়স্ক পুনর্বাসন কেন্দ্রে আবাস গড়লেও বাকিদের কারও দূর আত্মীয়স্বজনের বাসাবাড়ির পরিত্যক্ত স্থানে, কারও বা পথের ধারের বস্তিতে ঠাঁই মিলেছে। পাষাণ সন্তানের অত্যাচারে জীবনের পড়ন্ত বেলায় ঘরছাড়া হয়ে নিরুপায় অনেক মাকে ভিক্ষাবৃত্তি করে নিজের আহার জোগাতে হচ্ছে। 
এছাড়াও শহর ও গ্রামাঞ্চলে অর্ধেকেরও বেশি প্রবীণ মা পরিবারের সদস্যদের হাতে শারীরিকভাবে নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন। তাদের অধিকাংশের চিকিৎসাসেবা নিশ্চিত হয়নি। অথচ উদ্বেগজনক এ পরিস্থিতিতেও বয়োবৃদ্ধ অসহায় নারীদের শেষ আশ্রয় গড়ে তুলতে কোনো সরকারই কখনো তেমন উদ্যোগ নেয়নি। পিতা-মাতার ভরণপোষণ আইন ২০১৩ দীর্ঘদিন আগে পাস হলেও এ আইনে মামলা রুজু এবং বিনা খরচে আইনজীবী পরিচালনাসহ অন্যান্য সুবিধাদি দেয়ার ক্ষেত্রে সরকার এখনো কোনো ইতিবাচক পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি। এ আইনে নিষ্ঠুর সন্তানের অর্থদ- কিংবা অনাদায়ে কারাদ- দেয়ারও কোনো নজির নেই। দেশে কতসংখ্যক মা নিজ সন্তান কিংবা তার স্ত্রীর হাতে নির্যাতিত হয়ে ঘর ছেড়েছেন, তারা কোথায় কি অবস্থায় দিনযাপন করছেন এ সংক্রান্ত তথ্য সংগ্রহেরও কোনো উদ্যোগ নেয়নি রাষ্ট্র। এমনকি অসহায় মাদের আশ্রয়হীন হওয়ার হার দ্রুত বৃদ্ধির কারণ খুঁজে দেখারও চেষ্টা করা হয়নি।

মন্তব্যসমূহ