সিরিয়ায় ক্ষেপণাস্ত্র হামলার সঙ্গে ইরাক আগ্রাসনের মিল রয়েছে: পুতিন

সের্জিও মাত্তরেল্লার সঙ্গে যৌথ সংবাদ সম্মেলনে ভ্লাদিমির পুতিন

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন বলেছেন, রাসায়নিক হামলার অজুহাতে সিরিয়ার বিমান ঘাঁটিতে সাম্প্রতিক মার্কিন আক্রমণ ২০০৩ সালে ইরাক আগ্রাসনের অজুহাতের কথা স্মরণ করিয়ে দেয়। তিনি আরো বলেছেন, ইরাকের কাছে রাসায়নিক অস্ত্র থাকার মিথ্যা অভিযোগ তুলে ওয়াশিংটন ২০০৩ সালে দেশটির ওপর আগ্রাসন চালিয়েছিল।রাশিয়া সফররত ইতালির প্রেসিডেন্ট সের্জিও মাত্তারেল্লা’র সঙ্গে মস্কোয় এক সংবাদ সম্মেলনে এ মন্তব্য করেন পুতিন। তিনি বলেন, ইরাকের ওপর মার্কিন আগ্রাসনের ফলে দেশটি ধ্বংস হওয়ার পাশাপাশি দায়েশের মতো উগ্র জঙ্গি গোষ্ঠীর উত্থান হয়েছে।



রুশ প্রেসিডেন্ট বলেন, আজও সিরিয়ার ইদলিব প্রদেশে রাসায়নিক হামলার অজুহাত তুলে দেশটির ওপর আগ্রাসন চালিয়েছে ওয়াশিংটন। পুতিন বলেন, তার কাছে এমন তথ্য রয়েছে যে, সিরিয়ার আরো কিছু এলাকায় আগ্রাসী শক্তিগুলোই রাসায়নিক দ্রব্য ছড়িয়ে দিয়ে তার দায়ভার প্রেসিডেন্ট আসাদের ওপর চাপিয়ে দেবে এবং আরো হামলা চালাবে।



তিনি এ ব্যাপারে সবাইকে সজাগ দৃষ্টি রাখার আহ্বান জানান। একই সঙ্গে প্রেসিডেন্ট পুতিন সিরিয়ার ইদলিব প্রদেশের খান শাইখুন শহরের সাম্প্রতিক রাসায়নিক হামলার ব্যাপারে নিরপেক্ষ আন্তর্জাতিক তদন্তের আহ্বান জানান।

গত ৭ এপ্রিল সিরিয়ার হোমস প্রদেশের আশ-শারিয়াত বিমান ঘাঁটিতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালায় মার্কিন নৌবাহিনী। এতে ১৫ জন নিহত হওয়া ছাড়াও বিমান ঘাঁটিটির ব্যাপক ক্ষতি হয়। ওয়াশিংটন দাবি করে, ৪ এপ্রিল সিরিয়ার ইদলিব প্রদেশে চালানো রাসায়নিক হামলা এই ঘাঁটি থেকে উড়ে যাওয়া জঙ্গি বিমানগুলো চালিয়েছিল। তবে এই দাবির পক্ষে কোনো ধরনের প্রমাণ তুলে ধরতে পারেনি আমেরিকা। ইদলিব প্রদেশের ওই রাসায়নিক হামলায় অন্তত ৮০ ব্যক্তি নিহত হয়।
               



মন্তব্যসমূহ