ছাত্রলীগের সংঘর্ষের পর বন্ধ শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়

ছাত্রলীগের মধ্যে সংঘর্ষ, বোমাবাজি ও পাল্টাপাল্টি ধাওয়ার পর সিলেট শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্লাস-পরীক্ষা আগামী ৬ জানুয়ারি পর্যন্ত বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।
বুধবার বিশ্ববিদ্যালয়ের এক জরুরি সিন্ডিকেট সভায় ওই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। সিন্ডিকেট সদস্য এস এম হাসান জাকিরুল ইসলাম এই তথ্য জানান।
ক্লাস-পরীক্ষা বন্ধের এই সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ জানিয়েছেন একদল শিক্ষার্থী। তারা প্রথমে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকসংলগ্ন সিলেট-সুনামগঞ্জ সড়ক অবরোধ করেন। পরে উপাচার্যের বাসভবনের সামনে অবস্থান নেন।
পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত ক্যাম্পাসে সব ধরনের সভা-সমাবেশ, মিছিল-সস্নোগানও নিষিদ্ধ করেছে প্রশাসন। এ ছাড়া ছাত্রদের তিনটি আবাসিক হল আগামী ১ জানুয়ারি পর্যন্ত বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। তবে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে। এছাড়া ছাত্রী হল খোলা থাকবে। বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার মুহাম্মদ ইশফাকুল হোসেনের স্বাক্ষর করা আদেশে এই সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয়েছে।


ক্যাম্পাস সূত্র জানায়, আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে মঙ্গলবার সন্ধ্যার পর ছাত্রলীগের তিনটি পক্ষ এক হয়ে আরেকটি পক্ষকে ধাওয়া করে ক্যাম্পাস থেকে তাড়িয়ে দেয়। এ সময় উভয় পক্ষে পাল্টাপাল্টি ধাওয়া হয়। বোমা বিস্ফোরণ ও গুলির শব্দ শোনা যায়।

বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সূত্রগুলো বলছে, সহ-সভাপতি অঞ্জন রায়, আবু সাঈদ আকন ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাজিদুল ইসলামের অনুসারীরা এক হয়ে সাধারণ সম্পাদক ইমরান খানের পক্ষকে ধাওয়া করলে উত্তেজনাকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। একপর্যায়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের শাহ পরাণ হলে সাধারণ সম্পাদকের অনুসারী ছাত্রদের কক্ষ ভাংচুর করা হয়।

মন্তব্যসমূহ