চীন চায় পাকিস্তান ভারত যুদ্ধ লাগাতে

যখন সন্ত্রাসবাদ ইস্যুতে পাকিস্তানের ভূমিকা নিয়ে সর্ব গোটা বিশ্ব চুপ। ঠিক তখনই পাকিস্তানের দিকে পূর্ণ সমর্থনের হাত বাড়িয়ে দিলেন চীন। পাকিস্তানের বিরুদ্ধে কোন বহিরাগত আক্রমণ হলে সাহায্যের আশ্বাস বার্তাও দেয়া হয়েছে চীনের পক্ষ থেকে।গত ''দিন ধরে ভারত_পাকিস্তান সীমান্ত নিয়ে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। কাশ্মীরের উরির সেনাঘাঁটিতে সন্ত্রাসী হামলার পর পাকিস্তানের ভূমিকা নিয়ে নিন্দার ঝড় উঠেছে আন্তর্জাতিক মহলে। তবে যদিও এই বিষয়ে এখনও কোন মন্তব্য করেনি চীন । আর এ সুযোগেই আগ বাড়িয়ে পাকিস্তানের আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনার কথা তুলে চীন যে বার্তা দিলেন তা যথেষ্টই তাৎপর্যপূর্ণ। লাহোরে চীনের কনসাল জেনারেল ইউ বোরেনকে উদ্ধৃত করে পাকিস্তানের পাঞ্জাব প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে একটি প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে দেয়া হয়েছে। সেই বিবৃতিতে বোরেনের যে উদ্ধৃতি প্রকাশ করা হয়েছে তা হলঃ কোন রকম বহিরাগত হামলা হলে আমরা পাকিস্তানকে সব রকম সমর্থন দেব।



এখানেই শেষ না কাশ্মীর ইস্যুতেও পাকিস্তানের অবস্থানকে পূর্ণ সমর্থন জানিয়েছেন বোরেন। তারা বলেছেনকাশ্মীর ইস্যুতে আমরা পাকিস্তানের পাশে আছি এবং থাকব। নিরস্ত্র কাশ্মীরিদের দমন পীড়নের এখনও কোন বিচার হয়নি। কাশ্মীর ইস্যুর সমাধান হওয়া উচিত কাশ্মীরে বাসিন্দাদের ইচ্ছা মেনেই।’’

পাকিস্তানি সংবাদ মাধ্যম সূ্ত্রে জানানো হয়েছে পাকিস্তানের পাঞ্জাব প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী শাহবাজ শরিফ চীনা কূটনীতিবিদদের সঙ্গে আলোচনায় বসেছিলেন। সেই আলোচনায় এই বার্তা দেয়া হয়েছে বেইজিংয়ের পক্ষ থেকে।অন্যদিকে নয়াদিল্লি মনে করছে আসলে ভারতীয় সেনা হামলা করতে পারে বলে আগাম আশঙ্কায় ভুগছে পাকিস্তান। তাই আগে থেকেই গ্রামগুলো খালি করে কৌশলগত অবস্থান নিয়ে যুদ্ধের প্রস্তুতি শুরু করে দিতে চাইছে। চীন নিজে সরকারিভাবে এই নিয়ে কিছু বলেনি। কিন্তু চীনের কূটনৈতিক কর্তাকে উদ্ধৃত করে পাকিস্তান পাল্টা চাপ তৈরি করে রাখছে ভারতের উপর এমনটাই মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা।

মন্তব্যসমূহ