তনু হত্যার বিচার করতে হবে।’


I am Md Jahid : coordinator  voice of bangladesh
নাট্যকর্মী কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজের শিক্ষার্থী সোহাগী জাহান তনুকে ধর্ষণ করে গলাকেটে হত্যার প্রতিবাদে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজ ক্যাম্পাসে প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।  ভিক্টোরিয়া কলেজ থিয়েটারের আয়োজনে মঙ্গলবার সকাল ১০টায় প্রায় ৫ হাজার শিক্ষার্থী-সংস্কৃতিকর্মী এই প্রতিবাদী বিক্ষোভ সমাবেশে অংশ নেয়। ভিক্টোরিয়া কলেজের শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও সাধারণ মানুষ সমাবেশে অংশ নেয়।  এ সময় ভিক্টোরিয়া কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর আব্দুর রশীদ বলেন, ‘তনু আমাদের মেয়ে। আমরা সবাই আমাদের মেয়ের হত্যার বিচার চাই। যে নির্মমভাবে তনুকে হত্যা করা হয়েছে। এর বিচার করতে হবে।’ ভিক্টোরিয়া কলেজ থিয়েটারের প্রধান উপদেষ্টা ও শিক্ষক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক জহিরুল ইসলাম পাটোয়ারি বলেন, ‘নৈতিক জায়গা থেকেই এই আন্দোলনের সঙ্গে একাত্মতা পোষণ করছি। এই হত্যার প্রতিবাদ করতে হবে সবাইকে।’ কুমিল্লার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আব্দুল্লাহ-আল-মামুন বাংলামেইলকে বলেছেন, ‘আমি ঘটনাস্থল গিয়েছি। সোহাগীর মরদেহ দেখে প্রাথমিক ভাবে ধারণা করা হচ্ছে, তাকে ধর্ষণ ও শারীরিকভাবে নির্যাতন করে হত্যা করা হয়েছে।’ সেনানিবাসের মতো সুরক্ষিত এলাকায় এমন নির্মম ঘটনায় ক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছে সাধারণ মানুষ। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে তনু হত্যার বিচার চেয়ে অনেকেই স্ট্যাটাস দিয়ে জোর প্রতিবাদ জানিয়েছেন।

মন্তব্যসমূহ

Nahid বলেছেন…
Who will take step
Baki billah বলেছেন…
ক্যান্টনমেন্টের মত স্থানে ধর্ষণের ঘটনা ঘটলো এবার। রাস্তার ওপর পড়ে আছে জুতা, ছেড়া চুল, একটু দূরে মোবাইল ফোন আর একটু দূরে গলা কাটা লাশ, কান থেকে তখনো রক্ত ঝরে পড়ছে, ধর্ষনের পর হত্যা করা হয়েছে তনুকে। জ্বি, দেশের সবথেকে নিরাপদ স্থান বলা হয় ক্যান্টনমেন্টগুলোকে তেমনই একটা ক্যান্টনমেন্টে ধর্ষণ করে হত্যা করা হলো কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজে ইতিহাস বিভাগের ২য় বর্ষের ছাত্রী সোহাগী জাহান তনুকে। সেদিন কিন্তু আর বেশি দূরে নয় যখন আপনার বাসার মধ্যে ঢুকে আপনার বাসার কাউকে ধর্ষণ করে যাবে ধর্ষকের দল।

আমরা তো আবার ধর্ষণে ধর্ষিতার দোষও খুঁজে পাই। ধর্ষিতার পোশাক কেমন ছিল, সে পর্দা করতো কিনা, সে রাতে বাইরে বের হয় কেন, খাবার আলগা থাকলে মাছি বসবেই। হয়তো আমাদের মধ্যে মানুষরূপী কিছু শূকরশাবক এরমধ্যেই তনুরও দোষ খুঁজে পেয়েছে। সে মেয়ে হয়ে রাতে বাইরে কেন টিউশনি করতে যেত, হিজাব পরে কিন্তু বোরকা পরে নাই কেন, বেগানা মেয়েটা নাট্যকর্মী ছিল!!!

এমন দোষ দিয়ে আর কতদিন চলবেন? সবাইকে কি আপনার মত শূয়োরশাবক ভেবেছেন?
এদেশে গরু ধর্ষণের শিকার হয়েছে। গরুরও কি পর্দার দরকার ছিল?
গুগুলে সার্চ দিয়ে দেখেন মসজিদে আরবী পড়তে যাওয়া দশ বছর বয়সী ছাত্রী মসজিদের ইমামের কাছে ধর্ষণের শিকার হয়েছে।
দশবছর বয়সী ছাত্রীর কি এমন খারাপ পোশাক ছিল?
আমি যে কলেজিয়েট স্কুলে পড়তাম সেখানে দ্বিতীয় শ্রেনীর বাচ্চাদের জন্য নতুন করে ইংলিশ মিডিয়াম+হেফজখানা খোলা হয়েছিল। ঐ বাচ্চাদের স্কুলের আবাসিকে থাকতে হতো। ঐ বাচ্চাদের মধ্যে চারটা বাচ্চাকে হেফজখানার দায়িত্বে থাকা মাওলানা রাতে ধর্ষণ করে।
তো কি বলবেন? ছেলে বাচ্চাদেরও পোশাক খারাপ ছিল?
বাঙালি সেটেলারদের দ্বারা প্রতিনিয়ত পাহাড়ে যে ধর্ষণের ঘটনা ঘটছে সেটা নিশ্চয় জানেন। তাদের দোষটা কোথায় বলবেন কি? অবশ্য পাহাড়ি ধর্ষিত হলে আমাদের কি!!!